HomeFreelancingFiverr কি? ফাইভার থেকে টাকা ইনকাম করার উপায় (100% latest update)

Fiverr কি? ফাইভার থেকে টাকা ইনকাম করার উপায় (100% latest update)

5/5 - (7 votes)

Fiverr কি: এবং কিভাবে এখান থেকে অর্থ উপার্জন করবেন অনেকেই হয়তো অনেক সময়ে বিষয়ে চিন্তা করে থাকবেন। 

যারা অনলাইন হতে অর্থ উপার্জন করতে চান তারা কিন্তু এই মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে পারেন। অনলাইনে ইনকাম করার যতগুলো মার্কেটপ্লেস রয়েছে তার মধ্যে Fiverr অন্যতম। Fiverr কি

ফাইভার হল একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস যেখানে বিভিন্ন প্রান্তের বায়াররা জব পোস্ট করেন এবং ফ্রিল্যান্সারগণ সেই জব গুলো সম্পাদন করেন।

বর্তমান সময়ে অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে অসংখ্য তরুণ তরুণী এই মার্কেটপ্লেস হতে প্রতি মাসে ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করছেন। Fiverr কি

আপনিও চাইলে ফাইভারে কাজ করার মাধ্যমে অনলাইনে উপার্জন করতে পারেন।

যাই হোক আমরা আজকে আলোচনা করবো ফাইভার কি? ফাইভার কিভাবে কাজ করে? আপনি কিভাবে ফাইভারে কাজ করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন সেই সম্পর্কে। তাহলে চলুন শুরু করে দেই।

Fiverr কি?

সাধারণ ভাষায় বলা যায় ফাইভার হচ্ছে এমন একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস যেখানে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক কাজ কর্ম সম্পাদন করা হয়।

এই মার্কেটপ্লেস ব্যবহার করে যারা ফ্রিল্যান্স রয়েছে তারা তাদের কাজের সন্ধান চালায় এবং যারা গ্রাহক অথবা বায়ার রয়েছে তারা তাদের কাজ করিয়ে নেওয়ার জন্য বিভিন্ন ধরনের জব পোস্ট করে থাকে।

মূলত ফাইভার মার্কেটপ্লেস এ বিভিন্ন ধরনের সার্ভিস ক্রয়-বিক্রয় হয়ে থাকে। 

আর এ কারণেই ফাইভার থেকে অনলাইনে উপার্জন করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই একজন ফ্রীল্যান্সার হতে হবে। 

ফ্রিল্যান্সার কাকে বলে?

যারা ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে নিজের স্কিল এবং দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে ঘরে বসেই অর্থ উপার্জন করেন, মূলত তাদেরকেই ফ্রিল্যান্সার বলা হয়।

তবে ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে সংযুক্ত থাকতে হবে অথবা শুধুমাত্র ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হবে বিষয়টি এমন নয়। Fiverr কি

একজন ফ্রীল্যান্সার লোকাল কাজ করতেও পারে আবার ইন্টারন্যাশনাল কাজ করতে পারে সেটা ডিপেন্ড করবে তার নিজের ওপর। 

অর্থাৎ আপনার বাসার আশপাশে যদি কোন ইউটিউবার ইউটিউব এ ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করে সেখান থেকে আয় করে থাকে তাহলে সেও এক ধরনের ফ্রিল্যান্সার। Fiverr কি

অথবা আপনার আশেপাশে কোন ভাই অথবা বন্ধু যখন ডিজিটাল মার্কেটিং করে অনলাইনে অর্থ উপার্জন করে তখন সেও একজন ফ্রিল্যান্সার।

ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম Fiverr কি
ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজ করতে হবে এতে কোনো বাধ্যবাধকতা নেই।

অর্থাৎ “ফিজিক্যালি কোথাও জব, চাকরি কিংবা শারীরিক পরিশ্রমের কোন কাজ না করে সৎ উপায়ে নিজেরে স্কিল এবং দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে অনলাইনে যেকোন কাজ করে অর্থ উপার্জন করাকে ফ্রিল্যান্সিং বুঝায়”। আর যারা ফ্রিল্যান্সিং করে তারাই মূলত ফ্রিল্যান্সার। 

আশাকরি ফ্রিল্যান্সার কাকে বলে তা নিয়ে আর আপনার মনে কোন ধরনের প্রশ্ন নেই তারপরও যদি আপনি কিছু জানতে চান তাহলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে গিয়ে আপনার প্রশ্ন করুন আমি উত্তর দেয়ার চেষ্টা করব।

আউটসোর্সিং কাকে বলে?

সাধারণ ভাষায় বলা যায় নিজের দিক ঠিক রেখে অন্য কোন সোর্স এর মাধ্যমে যে কোন কাজ সম্পাদন করাকেই আউটসোর্সিং বলে।

অর্থাৎ আপনি যে সকল ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজ করেন, যে ব্যক্তি আপনাকে ঐ সকল কাজ দিচ্ছে মূলত তারা হচ্ছে আউটসোর্সার। Fiverr কি

অর্থাৎ যারা আপনাকে কাজ দিচ্ছে তারা হলো আউটসোর্সার আর সেই কাজগুলো যেহেতু আপনি করছেন তাই আপনি হচ্ছেন ফ্রিল্যান্সার। Fiverr কি

আউটসোর্সিং এবং ফ্রিল্যান্সিং এর মধ্যে যে পার্থক্য বিদ্যমান তা নিয়ে এখানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি।  আশা করছে আউটসোর্সিং কি এবং ফ্রিল্যান্সিং কি তার সম্পর্কে আপনি সঠিক ধারণা পেয়ে গেছেন। 

ফাইভারে কি কি ধরনের কাজ পাওয়া যায়?

আমরা আগেই বলেছি ফাইভার এমন একটি মার্কেটপ্লেস যেখানে কাজের কোন অভাব নেই । আপনি এক বা একাধিক বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জন করলে যে কোন অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এখানে বিভিন্ন ধরনের কাজ করতে পারবেন। Fiverr কি

যেমন,

  • ওয়েব ডিজাইন, 
  • ওয়েব ডেভলপমেন্ট 
  • কনটেন্ট রাইটিং 
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন 
  • প্রোগ্রামিং 
  • ওয়াডপ্রেস কাস্টমাইজেশন
  • লোগো ডিজাইন 
  • টি-শার্ট প্রিন্টিং 
  • ডিজিটাল মার্কেটিং ইত্যাদি। 

আরও হাজারো ক্যাটাগরির রয়েছে যেগুলো থেকে একটিকে বেছে নিয়ে আপনি সেখানে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। Fiverr কি

এক্ষেত্রে আপনি যদি একাধিক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যক্তি হয়ে থাকেন তাহলে, আপনি সবই করতে পারেন।

আরও আপনার জন্য: 

ফাইভার কিভাবে কাজ করে?

আমি পূর্বেই বলেছি ফাইভার হচ্ছে এমন একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস যেখানে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস ক্রয় বিক্রয় করা হয়। Fiverr কি

এর পরও যারা প্রশ্ন করছেন ফাইবার কিভাবে কাজ করে তাদের জন্য নিচে বিস্তারিত আলোচনা করলাম আপনি সেগুলো পড়ে নিতে পারেন।

  1. যারা ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন ফ্রিল্যান্সিং করে অর্থ উপার্জন করতে চান তারা ফাইভারে গিয়ে প্রথমে রেজিস্ট্রেশন করেন।
  2. এরপরে একজন ফ্রিল্যান্সার যে বিষয়ের উপরে দক্ষ সেই বিষয়ের উপর ভিত্তি করে সুন্দর একটি গিগ তৈরি করেন। ফাইবারে একটি গিগ তৈরি করা আবশ্যক কেননা আপনি কেন সেখানে রেজিস্ট্রেশন করছেন আপনি কি বিষয়ে পারদর্শী তার জানান দেয় শুধুমাত্র এই ফাইভার গিগ। তাই ফাইভার থেকে কাজ পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই সুন্দর একটি গিগ তৈরি করা আবশ্যক।
  3. যারা ফাইভারে বিভিন্ন ধরনের জব পোস্ট করে তাদেরকে বলা হয় ফাইভার সেলার।  আমরা যেটাকে বায়ার বলে সম্বোধন করি। Fiverr কি
  4. যখন কোন বায়ার অথবা সেলার আপনার গীক দেখে পছন্দ করবে তখন আপনার সাথে সে কমিউনিকেশন করার চেষ্টা করবে।  এবং আপনাকে মেসেজ করবে।  এমনও হতে পারে আপনি যে সকল স্কিল সম্পর্কে দক্ষতা অর্জন করেছেন তার পরীক্ষাও নিতে পারে। একজন সেলার যা চায় তা যদি আপনি তাকে দিতে পারেন তাহলে অবশ্যই সেখান থেকে আপনি সফল হবেন। Fiverr কি
  5. প্রথমেই একজন সেলার আপনাকে অনেকগুলো কাজ দেবে বিষয়টি এমন নয়।  এমন হতে পারে আপনাকে প্রথমে 5 ডলার কিংবা 10 ডলারের কাজ দিবে আপনাকে পরীক্ষা করার জন্য। 
  6. একজন ফ্রিল্যান্সার যখন তার ছেলের বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যায় তখন থেকেই উক্ত সেলারের হাজার হাজার ডলারের কাজ করে থাকেন। আমার দেখা এরকম অনেক ফ্রিল্যান্সার রয়েছে যারা কেবলমাত্র একটি মাত্র সেলার অথবা একটিমাত্র বাইরের কাজ করে লক্ষ লক্ষ ডলার আয় করেছেন। Fiverr কি

ফাইভার থেকে সেলার কিভাবে আয় করে

আপনাকে প্রথমেই বলে রাখি ফাইভার থেকে অর্থ উপার্জন করা এতটা সহজ নয় আপনি যতটা সহজ ভাবছেন।

ফাইভার থেকে ইনকাম করতে হলে আপনাকে অনেক ধৈর্য্য এবং অনেক পরিশ্রমের সাথে কাজ করতে হবে।

আপনি যে টপিক অথবা যে বিষয় নিয়ে ফাইভারে কাজ করতে চান সেই টপিক অথবা সেই বিষয়ের উপরে অনেক রিসার্চ করতে হবে এবং সেই সাথে অনেক দক্ষতা অর্জন করতে হবে। Fiverr কি

হলেই কেবলমাত্র ফাইভার থেকে আপনি খুব ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন যা অন্যান্য চাকরি তুলনায় অনেক বেশি। Fiverr কি

আমরা উপরে জেনেছি ফাইভার থেকে আপনি কিভাবে অর্থ উপার্জন করবেন, ফাইভারে কিভাবে গিগ তৈরি করবেন, ফাইভারে কিভাবে কাজ করবেন সেই সম্পর্কে।

এখন আমরা জানবো ফাইভার থেকে কিভাবে আপনি সেলার একাউন্ট তৈরি করবেন কিভাবে ফাইভারে বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস সেল করে অর্থ উপার্জন করবেন সেই সম্পর্কে। Fiverr কি

১. ফাইভারে যদি আপনি যে কোন প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস সেল করতে চান তাহলে সেই প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস এর উপরে খুব ভালোভাবে রিচার্জ করুন এবং তার সম্পর্কে অনেক জ্ঞান অর্জন করুন।

২. এরপর ইউটিউব ভিডিও দেখে অথবা নিজের যোগ্যতাকে কাজে লাগিয়ে ফাইভার একটি প্রফেশনাল সেলার একাউন্ট তৈরি করুন। Fiverr কি

৩. ফাহিমা রেসেলার একাউন্ট তৈরি হয়ে গেলে সেটিং অপশনে গিয়ে আপনার বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত লেখার চেষ্টা করুন।  এবং আপনি যে বিষয়টি নিয়ে কাজ করতে চান সেই বিষয় সম্পর্কে আপনার পোর্টফলিওতে খুব সুন্দর ভাবে একটি ডিসক্রিপশন লিখুন।

৪. এরপর আপনি যে বিষয়টি নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী সেই বিষয়ের উপরে সুন্দর একটি ফাইভার গিগ তৈরি করুন। এর ফলে আপনি যে সার্ভিসটি বিক্রি করতে চাচ্ছেন সেই সার্ভিস বিভিন্ন আউটসোর্সার দের কাছে কাছে পৌঁছে যাবে।

৫.তারপর যখন কোন কোম্পানি বা কোন ব্যক্তি আপনার ফাইভার গিগ দেখে কাজ দেবে তখন সে কাজ আপনাকে সঠিক সময়ে সঠিকভাবে ডেলিভারি দিতে হবে। 

৬.আপনি যে সার্ভিসটি বিক্রি করলেন সেই সার্ভিস কমপ্লিট হয়ে যাওয়ার পর আপনার ব্যাংক একাউন্টে উক্ত কাজের বিনিময়ে টাকা ট্রান্সফার করা হবে।

আপনি চাইলে এই সহজ পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করে ফাইভার একাউন্ট তৈরি করার পর সেখানে সেলার হিসেবে নিজেকে উপস্থাপন করতে পারেন।  Fiverr কি

বাংলাদেশসহ বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ ফাইভারে এই সব ধরনের কাজ করে কয়েকশো থেকে কয়েক হাজার ডলার প্রতি মাসে ইনকাম করে থাকে।

আরও আপনার জন্য: 

ফাইভারে কি কি কাজ রয়েছে?

আমার অনেক বন্ধু এবং আমার অনেক ভিজিটর যারা রয়েছেন তারা আমাকে প্রশ্ন করেন ফাইভারে কি কি কাজ রয়েছে? আমি কি কি কাজ করতে পারবো? Fiverr কি

তাদের প্রশ্নের উত্তরে আমাকে বলতে হয় ফাইভারে কি কি কাজ নেই তার সম্পর্কে একবার চিন্তা করুন।

বর্তমান প্রযুক্তিগত দুনিয়ায় ইন্টারনেটে এমন কোন কাজ নেই যা ফাইভারে পাওয়া যায় না।  প্রায় কম বেশী সকল ধরনের কাজ পাবেন ফাইভারে।  আপনি চাইলে যে কোন একটি বিষয়ে অবলম্বন করে ফাইভারে কাজ করার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন শুরু করতে পারেন।

Best SEO plugin 2024
Best SEO plugin 2024

যদি আপনি ওয়েব ডিজাইনার হন তাহলে আপনি ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের কাজ পেয়ে যাবেন।

আর আপনি যদি একজন কনটেন্ট রাইটার হন তাহলে আর্টিকেল কিংবা কনটেন্ট তৈরি করতে বিভিন্ন ধরনের কাজ পাবেন এই ফাইভার মার্কেটপ্লেস এ। Fiverr কি

এছাড়াও জনপ্রিয় কিছু কাজের ক্যাটাগরি রয়েছে যা নিচে তুলে ধরলাম: 

  • ওয়েব ডিজাইন
  • কন্টেন্ট রাইটিং 
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্টের 
  • গ্রাফিক্স ডিজাইনার
  • ডিজিটাল মার্কেটিং 
  • অ্যাপস তৈরির 
  • লোগো ডিজাইন
  • টি-শার্ট ডিজাইন
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ইমেইল মার্কেটিং
  • সোশ্যাল মিডিয়া সহ আরো অনেক ধরনের কাজ ফাইভার মার্কেটপ্লেস এ পাওয়া যায়।

ফাইভার থেকে প্রতি মাসে কত টাকা আয় করা যায়?

ফাইভার কি? ফাইভার কিভাবে কাজ করে? ফাইভার থেকে কিভাবে অর্থ উপার্জন করবেন ফাইভারে কি ধরনের কাজ পাওয়া যায় সে সম্পর্কে তো আপনি জেনে নিলেন।

ফাইভার থেকে টাকা ইনকাম

এখন হয়তো আপনার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে আপনি ফাইভার থেকে প্রতি মাসে কত টাকা উপার্জন করতে পারবেন তাইতো! Fiverr কি

আপনাদের উদ্দেশ্যে বলেন আগে আপনি যেকোনো একটি ক্যাটাগরির উপরে যদি খুব ভালোভাবে দক্ষতা অর্জন করতে পারেন আর সেইসঙ্গে ফাইভারে কাজ করতে পারেন তাহলে প্রতি মাসে এখানে 100 থেকে শুরু করে 1000 ডলার পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

ফাইভার থেকে ইনকাম করার কোন লিমিটেশন নেই আপনি চাইলে এখানে হাজার থেকে লক্ষ ডলার আয় করার অধিকার রাখেন।

তবে সেটি কেবলমাত্র নির্ভর করবে আপনার উপর।  আপনি যত কাজ করবেন তত টাকা পাবেন। কেউ বলবে না আপনি কেন ফাইভার থেকে এত টাকা উপার্জন করছেন।

যারা দক্ষ এবং ভালো মানের ফ্রিল্যান্সার রয়েছে তারা প্রতিমাসে এখান থেকে কয়েক হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করে থাকেন। Fiverr কি

তাই আমি আপনাকে রিকোয়ারমেন্ট করবো আপনি যে কোন একটি বিষয়ে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করে ফাইভারে সংযুক্ত হতে পারেন।

ফাইভারে কাজ করার ঝুঁকি আছে কি?

ফাইভার থেকে ইনকাম করতে গেলে ফাইভারে কাজের ক্ষেত্রে কোনো ঝুঁকি আছে কিনা আপনি ফাইভারে যে কাজ করছেন তার বিনিময়ে যে পেমেন্ট পাবেন তা নিয়ে কোনো সমস্যা হবে কিনা এ নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন। Fiverr কি

আপনার উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি ফাইভারে আপনি হয়তো নতুন কিন্তু এই ফাইভারে দীর্ঘদিন ধরে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সার ফ্রিল্যান্সিং করে আসছে।  এমনকি এখন পর্যন্ত এরকম কোনো রেকর্ড নেই যে কারো পেমেন্ট আটকা পড়েছে অথবা কেউ পেমেন্ট পাইনি।

ফাইভারে যখন আপনি কোন কাজের বিনিময়ে পেমেন্ট পাবেন তখন চাইলেই সঙ্গে সঙ্গে আপনার সেই পেমেন্ট আপনার ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার করতে পারেন। 

সুতরাং আপনারা চোখ বন্ধ করে ফাইভার মার্কেটপ্লেস কে বিশ্বাস করে সেখানে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। অন্যান্য মার্কেটপ্লেসের তুলনায় ফাইভার একটি বিশ্বস্ত এবং জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস এখানে আপনি কখনই প্রতারিত হবেন না। Fiverr কি

ফাইভারে ফ্রিল্যান্সিং করে ক্যারিয়ার গঠন

যদি আপনি ফিজিক্যালি কোথাও জব অথবা চাকরি করেন তাহলে আপনি মাস শেষে যে অর্থ পাবেন তার থেকেও অধিক পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারেন এই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে।

অনেকে আছেন পড়াশোনা শেষ করে দেশে একটি ভালো চাকরি খুঁজে পান না। তারা কিন্তু চাইলেই যে কোন বিষয়ে একটি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করে এই মার্কেটপ্লেস অর্থাৎ ফাইভারে যুক্ত হতে পারেন।

এতে করে অন্যান্য চাকরির তুলনায় ফাইভার থেকে প্রতি মাসে কয়েক হাজার ডলার উপার্জন করার সক্ষমতা অর্জন করতে পারেন।

তাই বলা যায় অন্যান্য চাকরির তুলনায় ফাইভার থেকে ক্যারিয়ার গঠন করা খুবই সহজ। ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ক কোর্স করে দক্ষতা অর্জন করার পর আপনি যদি ফাইভারে একাউন্ট তৈরী করেন এবং সেখানে উপার্জন করা শুরু করেন তাহলে এখান থেকেই আপনি সুন্দর একটি ক্যারিয়ার গঠন করতে পারবেন বলে আমি আশা রাখি।

আমাদের শেষ কথা,

ফাইভার হচ্ছে ফ্রীল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোর মধ্যে জনপ্রিয় একটি প্লাটফর্ম যেখানে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সার এবং হাজার হাজার সেলার প্রতিদিন 500 থেকে 5000 ডলার পর্যন্ত আয় করে থাকে।

সঠিকভাবে জ্ঞান অর্জন করতে পারলে ফাইভারে আপনি আপনার ক্যারিয়ার দাঁড় করাতে পারবেন।

আমি আমার ক্ষুদ্র দক্ষতা অনুযায়ী এই আর্টিকেল লেখার চেষ্টা করেছি।  যদি কোথাও ভুলভ্রান্তি হয়ে থাকে তাহলে ক্ষমা দৃষ্টিতে দেখবেন।

আর ফাইবার সম্পর্কে যদি আরও বিস্তারিত জানান আগ্রহ থাকে তাহলে আপনার মতামত কমেন্ট সেকশনে জানে আমাকে উৎসাহিত করবেন পরবর্তী কোন আর্টিকেল লেখার।

আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার কাছে যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে একটু ভালোবাসা দিয়ে যাবেন। সকলে ভাল থাকুন, সুস্থ থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Updated

Recent