HomeNIDWভোটার তথ্য যাচাই করার নতুন উপায়-Nid check 2024

ভোটার তথ্য যাচাই করার নতুন উপায়-Nid check 2024

5/5 - (3 votes)

অনলাইনে ভোটার তথ্য যাচাই করার নতুন কিছু উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি আপনার এন আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন খুব সহজেই। আপনি যদি অনলাইন এবং অফলাইনে এনআইডি কার্ড চেক করার তথ্য খুঁজে থাকেন তাহলে আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন।

বর্তমান সময়ে যারা নতুন ভোটার আবেদন কিংবা নিবন্ধন করেছেন তবে ভোটার আইডি কার্ড এখন পর্যন্ত হাতে পান নেই  আপনারা খুব সহজেই অনলাইন এর মাধ্যমে ১০৫ থেকে পাওয়া NID সংখ্যা দিয়ে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য অনায়াসে যাচাই করতে পারবেন। আজকের এই আর্টিকেলে অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া দেখানো হয়েছে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য : বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশ ভূমি মন্ত্রণালয়, জন্ম এবং মৃত্যু নিবন্ধন ওয়েবসাইটকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় বর্তমান যেকোনো ধরনের এনআইডি কার্ড অথবা জন্ম এবং মৃত্যু নিবন্ধন সংশোধন অথবা যাচাই করণ থেকে বিরত রেখেছে। তাই পরবর্তী নির্দেশনা না আসা পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইনে যাচাই করতে পারবেন না।

সাধারণত একজন মানুষের ব্যক্তিগত ভ্যালিডিটি প্রমাণ অথবা ব্যক্তিটি আসলেই দেশের নাগরিক কিনা এবং সে জীবিত কিনা তা যাচাই করার জন্য অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য চেক করতে হয়। 

আমরা সকলেই জানি যে বিভিন্ন কর্মস্থলে যোগদানের ক্ষেত্রে, চাকরিতে নিয়োগ, জমি ক্রয় বিক্রয়, সন্তানের স্কুলে এডমিশন, ব্যাংক বীমা, লোন উত্তোলন, সহ বাড়ি ভাড়া নেওয়ার ক্ষেত্রে আবেদনকৃত ব্যক্তির জাতীয় পরিচয়পত্র তথা এন আইডি কার্ডের তথ্যগুলো সঠিক কিনা তা যাচাই করতে মানুষ অনলাইনে চেষ্টা করে।

কিন্তু www.nidw.gov.bd অর্থাৎ জাতীয় নির্বাচন কমিশন কার্যালয় কর্তৃক বর্তমানে Nid card এর তথ্য দেখার যে অনলাইন সার্ভার রয়েছে তা অনির্দিষ্টকালের জন্য অফিসিয়ালি ভাবে বন্ধ রয়েছে। 

আমরা সকলেই জানি বিগত দিনগুলোতে নির্বাচন কমিশনের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট অর্থাৎ services.nidw.gov.bd প্রবেশ করে সেখানে ভোটার স্লিপ সাবমিট করার মাধ্যমে নিবন্ধিত নতুন ভোটারদের এনআইডি কার্ডের নাম্বার বা ভোটার ইনফরমেশন দেখা যেত। 

কিন্তু সাময়িক প্রাইভেসি পলিসি জনিত কারণে অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ডের কোন তথ্যের সেবা বর্তমানে অনলাইন থেকে পাওয়া যাচ্ছে না। 

তবে অনেকেরই জানা নেই, আপনি চাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে  আপনার নিবন্ধনকৃত ফর্ম নাম্বার দিয়ে এন আইডি কার্ডের তথ্যসহ এনআইডি কার্ডের নাম্বারটি বের করতে পারবেন।

এছাড়াও এসএমএস এর মাধ্যমে পাওয়া আইডি কার্ড এর তথ্য অথবা নাম্বার দিয়ে নতুন ভোটার নিবন্ধনদের জন্য ভোটার তথ্য যাচাই চেক করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনার নিবন্ধনকৃত এনআইডি কার্ড বাংলাদেশ জাতীয় নির্বাচন কমিশন অফিসের অনলাইন সার্ভারের ডাটাবেজে সঠিকভাবে আপলোড হয়েছে কিনা এটা যাচাই করতে পারবেন।

ভোটার তথ্য যাচাই করন প্রক্রিয়া

  1. বর্তমান সময়ে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য অনলাইনের মাধ্যমে যাচাই করার জন্য প্রথমে আপনাকে গুগল ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করে ldtax.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। 
  2. এরপর নাগরিক কর্নার নামে একটি মেনু রয়েছে সেখানে ক্লিক করে আপনার একটি অ্যাক্টিভ মোবাইল নম্বর সাবমিট করতে হবে। যে নাম্বারটি দিয়েছেন সে নাম্বারে একটি otp কোড যাবে সেই কোডটি দিয়ে একাউন্টে এক্টিভ করতে হবে।
  3. এবং পরবর্তী ধাপে 105 নাম্বার থেকে আসা NID নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে “পরবর্তী পদক্ষেপ” বাটনে ক্লিক করতে হবে।

সাধারণত ঘরে বসে দুই ভাবে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন।

  • এসএমএস এর মাধ্যমে ভোটার তথ্য যাচাই।
  • অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার তথ্য যাচাই।

এখন আমি আপনাকে দেখাবো আপনি কিভাবে আপনার ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য অনলাইনে যাচাই এবং এসএমএস এর মাধ্যমে এনআইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন।

এসএমএস এর মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য চেক করার পদ্ধতি

বর্তমান সময়ে যেহেতু অনলাইনের মাধ্যমে এনআইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে ভোগান্তি প্রভাতে হচ্ছে তাই আপনি চাইলে ১০৫ নাম্বারে এসএমএস দিয়ে খুব সহজেই ভোটার আইডি কার্ড অথবা এন আই ডি কার্ডের তথ্য চেক  করতে পারবেন। 

এসএমএস এর মাধ্যমে এনআইডি কার্ড চেক করার পদ্ধতি স্টেপ বাই স্টেপ দেখানো হলো:

  1. প্রথমে আপনার মোবাইলের মেসেজ অপশনে যান
  2. মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন SC স্পেস  দিয়ে F স্পেস দিয়ে এসএমএসের মাধ্যমে আসা আইডি কার্ড নাম্বারটি দিন এবং আবারো স্পেস দিয়ে D লিখুন আবারো স্পেস দিয়ে জন্মতারিখ লিখুন।
  3. এবং সবশেষে আপনার লেখা এসএমএসটি ১০৫ নাম্বারে পাঠিয়ে দিন।

প্রশ্ন: আচ্ছা অনেকেই প্রশ্ন করতে পারেন আমি তো সবেমাত্র ভোটার আইডি কার্ড পাবার জন্য ভোটার নিবন্ধিত হয়েছি আমি এখনো ভোটার আইডি কার্ড পাইনি তাহলে আমি কিভাবে আমার নিবন্ধনকৃত ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য জানতে পারবো?

উত্তর: উপরে দেখানো পদ্ধতি ব্যবহার করে আপনার নতুন এনআইডি নিবন্ধিত স্লিপ নাম্বার দিয়েও ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন। 

বিশেষ দ্রষ্টব্য: কোন কারনে যদি ১০৫ নাম্বার থেকে ফিরতি এসএমএস এর মাধ্যমে এনআইডি কার্ড নাম্বার না আসে তাহলে, মনে করে দেখুন যখন আপনি নতুন ভোটার হওয়ার জন্য নিবন্ধিত হয়েছিলেন তখন আপনাকে একটি নিবন্ধনের স্লিপ দেয়া হয়েছিল। 

এমত অবস্থায় আপনি উক্ত নিবন্ধন এর স্লিপ নাম্বার বা ফরম নাম্বার ব্যবহার করার মাধ্যমে এনআইডি কার্ডের বর্তমান অবস্থা জানতে পারবেন। এসএমএস পাঠানোর ঠিক ২৪ ঘন্টার মধ্যে ফিরতি এসএমএস এ আপনার ভোটার আইডি কার্ডের সকল তথ্য নির্বাচন কমিশন অফিস আপনাকে জানিয়ে দিবে।

কিভাবে এসএমএস এর মাধ্যমে এনআইডি কার্ড অথবা জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ্য যাচাই করবেন তার একটি ফরম্যাট নিচে তুলে ধরা হলো: 

উদাহরণ: SC <space> F <space> NID/from number <space> D <space> 1998-04-23 লেখা হয়ে গেলে সবশেষে আপনার লেখা এসএমএসটি 105 নাম্বারে পাঠিয়ে দিন। ব্যাস আপনার কাজ শেষ। এখন আপনি ২৪ ঘন্টার ভিতরে আপনার আবেদনকৃত এনআইডি কার্ডের তথ্য আপনার মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে পেয়ে যাবেন।

উল্লেখ্য: জন্ম তারিখ YY-MM-DD ফরমেটে পূরণ করবেন অর্থাৎ প্রথমে বছর (Year) পরে মাস (Month) এবং এরপরে দিন (Day) দিয়ে দিবেন।

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই

অনলাইনের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই জন্য সরাসরি বা ডিরেক্টলি কোন ওয়েবসাইট আপনি বাংলাদেশে পাবেন না। কেননা এনআইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করার জন্য বর্তমানে নির্বাচন কমিশন অফিস থেকে ডিরেক্টলি কোন ওয়েবসাইট প্রোভাইড করেনি।

তাই আপনি অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করার একটি নতুন ট্রিকস অবলম্বন করবেন যা ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি আপনার এনআইডি কার্ডের তথ্য অনলাইনে চেক করতে পারবেন।

সহজ কথায় অনলাইনে এনআইডি কার্ডের তথ্য অথবা ভোটার আইডি কার্ড যাচাই করার জন্য আপনি বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয় এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারেন। 

ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট ব্যবহার করে শুধুমাত্র মোবাইল নাম্বার দিয়ে এবং এনআইডি কার্ডের নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিয়ে  মাত্র 2 মিনিটে  ভোটার আইডি কার্ড অর্থাৎ এনআইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন।

অনলাইনে যার তথ্য যাচাই করতে চান অবশ্যই তার NID কার্ড নাম্বার প্রয়োজন হবে। 

সাধারণত নতুন ভোটার নিবন্ধন করার পর এনআইডি কার্ড অনলাইন সার্ভারে আপলোড হবার পর ১০৫ নাম্বার থেকে এসএমএস এর মাধ্যমে ভোটার আইডি নাম্বার বা এনআইডি নাম্বার উক্ত নিবন্ধিত ভোটারগণকে জানানো হয়।

সুতরাং যদি নির্বাচন কমিশন মন্ত্রণালয় 105 নাম্বার থেকে এসএমএস এর মাধ্যমে আপনাকে আপনার এনআইডি কার্ডের নাম্বার জানিয়ে দেয় তাহলে খুব সহজেই অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন। 

অনলাইনে ভোটার তথ্য যাচাই প্রক্রিয়াঃ

আর্টিকেলের এই সেকশনে আমি আপনাদের দেখাতে চলেছি আপনি কিভাবে অনলাইনে ভোটার তথ্য যাচাই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে পারেন। আজকের এই আর্টিকেলে দেয়া উদাহরণ স্টেপ বাই স্টেপ ফলো করলে আপনি আপনার ভোটার আইডি কার্ড অথবা এন আইডি কার্ডের তথ্য অনলাইনের মাধ্যমে চেক করতে পারবেন।

Nid check 2024
Nid check 2024

ধাপ ১: সর্বপ্রথম ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। 

ধাপ ২: বাম দিক থেকে নাগরিক কর্নার মেনুতে প্রবেশ করুন। 

ধাপ ৩: এরপর একটি সচল মোবাইল নাম্বার দিয়ে ওটিপি কোড এর মাধ্যমে একাউন্ট এক্টিভ করে নিন।

ধাপ ৪: ১০৫ নাম্বার থেকে মেসেজ এ আসা এনআইডি নাম্বারটি সাবমিট করুন।

ধাপ ৫: এরপর নিবন্ধিত ভোটার আইডি কার্ডে প্রদান করা তথ্য অনুযায়ী জন্ম তারিখ অর্থাৎ (দিন, মাস, বছর) ফরমেটে ইনক্লুড করে দিয়ে “পরবর্তী পদক্ষেপ” এই বাটনে ক্লিক করুন। 

বিশেষ দ্রষ্টব্য: এখানে শুধুমাত্র ১০৫ থেকে আসা এনআইডি কার্ডের নাম্বার সাবমিট করে এনআইডি কার্ডের তথ্য চেক করতে পারবেন। নিবন্ধিত ভোটার স্লিপ নাম্বার দিয়ে আপনি এখানে এনআইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন না।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে “পরবর্তী পদক্ষেপ” এই বাটনে ক্লিক করার পর একটু লোডিং নিয়ে ১০ থেকে ১৫ সেকেন্ডের মধ্যে আপনার এনআইডি কার্ড তথা ভোটার আইডি কার্ডের কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেখতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: আপনার নিবন্ধিত ভোটার আইডি কার্ড অথবা এনআইডি কার্ডটি যদি কোন কারনে অনলাইন সার্ভারে পাওয়া না যায় তাহলে সেক্ষেত্রে উল্লেখ্য এনআইডি কার্ডের কোন ধরনের তথ্য দেখতে পারবেন না। 

যদি আপনার এনআইডি কার্ড বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ের অনলাইন সার্ভারে আপলোড হয়ে থাকে তাহলে এখান থেকে কাঙ্খিত জাতীয় পরিচয়পত্র/এনআইডি কার্ড/ভোটার আইডি কার্ডে জনৈক ব্যক্তির নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, জন্ম তারিখ এবং নিবন্ধনের সময় যে ছবি উঠিয়ে ছিল তা দেখতে পারবেন।

জনপ্রিয় এই সহজ পদ্ধতিগুলো ব্যবহার করে ঘরে বসে আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোন কিংবা ল্যাপটপ, কম্পিউটার ব্যবহার করার মাধ্যমে খুব সহজেই অনলাইন থেকে এন আইডি কার্ড কিংবা জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য যাচাই করতে পারবেন। 

তবে অনেকের এনআইডি নম্বর জানা নেই তারা চাইলে শুধুমাত্র ফরম নম্বর ব্যবহার করে এনআইডি কার্ডের তথ্য চেক করতে পারবেন।

ফরম নাম্বার দিয়ে ভোটার তথ্য যাচাই করার নিয়ম

আর্টিকেলের উপরের সেকশনগুলোতে আমি আপনাদের দেখানোর চেষ্টা করেছি, আপনি কিভাবে এসএমএস এর মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য চেক করতে পারেন এবং অনলাইন এর মাধ্যমে কিভাবে এনআইডি কার্ডের তথ্য চেক করতে পারেন। কিন্তু এই সেকশনে আমি আপনাদের দেখাতে চলেছি কিভাবে স্লিপ নম্বর অথবা ফর্ম নম্বর দিয়ে ভোটার তথ্য চেক করতে পারবেন। 

তাই নিচে দেওয়া পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনি ফর্ম নম্বর ব্যবহার করে অথবা স্লিপ নাম্বার ব্যবহার করে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য চেক করতে পারবেন।

স্লিপ নাম্বার দিয়ে এনআইডি কার্ড যাচাই পদ্ধতি

ধাপ ১: সর্বপ্রথম nidw অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন।

ধাপ ২: অ্যাকাউন্ট রেজিস্টার করার জন্য  ফরম নম্বর ও জন্ম তারিখ প্রদান করুন।

ধাপ ৩: ক্যাপচা পূরণ করে “সাবমিট” বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ ৪: আইডি কার্ডে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী আপনার বর্তমান ঠিকানা ও স্থায়ী ঠিকানা যাচাই করুন। 

ধাপ ৫: এরপরে “পরবর্তী” বাটনে ক্লিক করুন।

ধাপ ৬: এরপর নতুন ভোটার নিবন্ধন এর সময় দেওয়া মোবাইল নাম্বারটি দেখতে পাবেন, যদি কোন নাম্বার দেয়া না থাকে তাহলে একটি সচল নাম্বার বসিয়ে “বার্তা পাঠান” বাটনে ক্লিক করুন। 

ধাপ ৭: কিছুক্ষণের মধ্যে উল্লেখ্য মোবাইল নম্বরে nidw থেকে একটি OTP কোড পাঠিয়ে দেবে, উক্ত OTP কোড সাবমিট করে একাউন্ট ভেরিফিকেশন করুন।

এরপরে অটোমেটিক ভাবে একটি  নতুন পেজ ওপেন হবে এখানে লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন একটি QR কোড দেয়া থাকবে। 

এখন আপনার মোবাইল ফোন থেকে গুগল প্লেস্টোরে গিয়ে Nid Wallet এপ্লিকেশনটি ইন্সটল করুন। আপনার সুবিধার্থে আমি আপনাকে বলে দেই, কিউআর কোড স্ক্যান করার জন্য অন্য আরেকটি স্মার্টফোন এর মাধ্যমে Nid Wallet অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড দিয়ে কিউআর কোড স্ক্যান করলে আপনার জন্য সুবিধা হবে, আপনি চাইলে এভাবে কিউআর কোড স্ক্যান করুন।

অথবা আপনার ফোনেই এপ্লিকেশনটি ওপেন করে যে ব্রাউজার দিয়ে আপনি nidw ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেছেন তা একবার রিফ্রেস করলেই QR কোডটি অটোমেটিক স্ক্যান হয়ে যাবে। 

  • এরপরে Nid Wallet এপ্লিকেশনে অটোমেটিক ক্যামেরা ওপেন হবে।
  • প্রথমে ডান দিকে এরপরে বামদিকে ফেইস ভেরিফিকেশন কমপ্লিট করুন। 
  • এবং পুনরায় যে ব্রাউজার দিয়ে nidw ওয়েবসাইটে অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন সেখানে যান এবং এখানে সেট পাসওয়ার্ড একটি পেজ চলে আসবে। 
  • এখানে ফেসবুক অথবা অন্যান্য জায়গায় যেরকম ভাবে পাসওয়ার্ড দেন ঠিক একইভাবে পাসওয়ার্ড দিয়ে পাসওয়ার্ডটি কোথাও সেভ করে রাখুন।

পাসওয়ার্ড সেট করার পর আপনি কাঙ্খিত Nidw প্রোফাইল দেখতে পাবেন। একটু নিচে লক্ষ্য করলেই দেখতে পারবেন ডাউনলোড নামে একটা অপশন রয়েছে আপনি চাইলে সেখানে ক্লিক করে আপনার এনআইডি কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

এমনকি ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করে দিলে আপনার ভোটার আইডি কার্ড একটি পিডিএফ ফাইল আকারে আপনার ডিভাইসে সংরক্ষণ হয়ে যাবে যা আপনি পরবর্তীতে যে কোন কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: খেয়াল করবেন যদি ফর্ম নাম্বার দিয়ে যদি এই ওয়েবসাইটে লগইন করতে না পারেন তবে আপনাকে বুঝে নিতে হবে আপনার কাঙ্খিত এনআইডি কার্ডটি এখনো তৈরি হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Updated

Recent