HomeFreelancingফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক থেকে আয়-ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক থেকে আয়-ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স

5/5 - (4 votes)

ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক থেকে আয়-ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স সম্পর্কে আপনি যদি বিস্তারিত জানতে চান তাহলে, আজকের এই আর্টিকেল আপনার জন্য। বর্তমান সময়ে ইন্টারনেটের কল্যাণে ফেসবুকের সাথে আমরা কমবেশি সকলেই জড়িত। ফেসবুক মার্কেটিং কি

কেননা ফেসবুক যেহেতু বর্তমান সময়ে একটি জনপ্রিয় যোগাযোগের মাধ্যম সেহেতু প্রত্যেকটি মানুষ কম বেশি দিনের যেকোনো অংশে ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে।

একটা সময় ফেসবুকে মানুষ শুধুমাত্র বিনোদনের জগৎ হিসেবে ধরে নিলেও বর্তমান সময়ে এই ফেসবুককে কাজে লাগিয়ে কোটি কোটি মানুষ লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করছে প্রতিনিয়ত।

ফেসবুক আর এখন শুধু বিনোদনের জগৎ নয়, আপনি চাইলেই ফেসবুকে অনেক সময় অপচয় করতে পারেন, আবার এই ফেসবুক ব্যবহার করে প্রতি মাসে কয়েক হাজার থেকে কয়েক লক্ষ টাকা আয় করতে পারেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

যেহেতু ফেসবুক একটি সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম তাই এই সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে যতগুলা মানুষ আছে এই মানুষগুলোকে নিয়ে একটি ডিজিটাল মার্কেটপ্লেস তৈরি করা সম্ভব। আর এজন্যই “ফেসবুক মার্কেটিং” শব্দটি ব্যবহার হয় সব জায়গাতেই। 

পূর্বের দিনগুলোতে আমরা দেখেছিলাম, যে কোন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোন বিষয় সম্পর্কে মানুষ পোস্টার-লিফলেট অথবা ব্যানার এর মাধ্যমে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোন বিষয়ের প্রচার এবং প্রসারনা চালাতো। ফেসবুক মার্কেটিং কি

কিন্তু ইন্টারনেটের প্রচার এবং প্রসার ও তার ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে সেই লিফলেট এবং ব্যানার কিংবা অন্য কোন মাধ্যমগুলো ডিজিটাল ভাবে পরিণত হয়েছে।

তথাকথিত ভাবে পূর্বের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্রচার-প্রচারণার বৃদ্ধি করার যে লিফলেট কিংবা ব্যানার অথবা মাইকিং পদ্ধতি ছিল তা আজকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরিণত হয়েছে। সাধারণভাবে এই ডিজিটাল পদ্ধতি গুলোকেই বলা হয় ডিজিটাল মার্কেটিং।

তবুও আমি সংক্ষিপ্ত একটি বর্ণনা দেই ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে আর তা হল:

ইন্টারনেট ভিত্তিক অনলাইন কে কেন্দ্র করে অনলাইনের মাধ্যমে যে কোন কোম্পানির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান প্রচার-প্রচারণা অথবা তাদের প্রোডাক্ট বিক্রির যে সকল বিজ্ঞাপন অনলাইন ভিত্তিক হয়ে থাকে সেটাই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং। ফেসবুক মার্কেটিং কি

ডিজিটাল মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম হতে পারে ফেসবুক, হতে পারে ইউটিউব, কিংবা ইনস্টাগ্রাম অথবা টুইটার, ব্লগ, ওয়েবসাইট, ইমেইল ইত্যাদি।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি তা নিয়ে এই পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আপনি যদি বিস্তারিত জানতে চান তাহলে এখানে ক্লিক করে পড়ে নিতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর আবার বড় একটি অংশ হচ্ছে ফেসবুক মার্কেটিং

তবে যেহেতু আজকে আমরা আলোচনা করবো ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে কাজ করে? ফেসবুক মার্কেটিং মাধ্যমে আপনি কিভাবে অনলাইনে আয় করবেন সেই সম্পর্কে,

তাই এই আর্টিকেলে শুধুমাত্র ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে কথা বলব। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা।

Table of Contents

ফেসবুক মার্কেটিং কি?

ফেসবুক কে কেন্দ্র করে অনলাইনে যে মার্কেটপ্লেস গড়ে ওঠে সেটাই হচ্ছে ফেসবুক মার্কেটিং

অর্থাৎ যেহেতু ফেসবুক বর্তমান সময়ে পৃথিবীর সবচেয়ে বৃহৎ সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম সেহেতু এখানে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন মানুষ কিংবা সকল ফেসবুক ইউজার একটিভ থাকে।

তাই এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম কে ব্যবহার করে একটি বড় ধরনের মার্কেটপ্লেস তৈরি হয়েছে।

আর এই ফেসবুক মার্কেটপ্লেসকে সঠিকভাবে ব্যবহার করে বিভিন্ন পণ্য এবং বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন প্রচার প্রচারণা চালানো কি ফেসবুক মার্কেটিং বলা হয়। ফেসবুক মার্কেটিং কি

  • অর্থাৎ মনে করুন আপনি একটি প্রোডাক্ট বিক্রি করবেন, ফিজিক্যালি হলে হয়তবা সেই প্রোডাক্টটি নিয়ে বিভিন্ন দোকান অথবা বিভিন্ন শোরুমে আপনাকে ঘুরেফিরে বিক্রি করতে হবে।

কিন্তু যদি সেই প্রোডাক্টটি আপনি অনলাইনে বিক্রয় করার কথা চিন্তা করে থাকেন তাহলে ফেসবুক এমন একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম,

যেখানে লাখো লাখো মানুষের কাছে আপনার সেই পণ্যটির একটি বিজ্ঞাপন কিংবা একটি পোস্ট এর মাধ্যমে আপনার সেই পণ্য বিক্রয়ের ব্যাপারটি জানিয়ে দিতে পারেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

প্র্যাকটিক্যালি ভাবে দেখা যাবে আপনি যখন ফিজিক্যালি কোন প্রোডাক্ট অফলাইনে কোন দোকান কিংবা শোরুমে বিক্রি করতে যাবেন তখন আপনি একা বেশি দোকান বা বেশি এলাকা কাভার করতে পারবেন না।

কিন্তু ফেসবুক যেহেতু কমবেশি সবাই ব্যবহার করে তাই, এটি এমন একটি মার্কেটপ্লেস হিসেবে দাঁড়িয়েছে যেখানে প্রত্যেক এর মাঝেই আপনার পণ্য অথবা আপনার প্রতিষ্ঠান বিক্রয় কিংবা কোন সার্ভিসের তথ্য খুব সহজেই একটি পোস্টের মাধ্যমে অথবা একটি বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে সবার কাছে পৌঁছে দিতে পারেন।

যেহেতু ফেসবুক কে কেন্দ্র করে একটি বড় ধরনের মার্কেটপ্লেস তৈরি হয়েছে, সেহেতু এই ফেইসবুক মার্কেটপ্লেসে আপনার বুদ্ধিমত্তাকে কাজে লাগিয়ে যে পদক্ষেপগুলো সম্পাদন করবেন তাকেই বলা হয় ফেসবুক মার্কেটিং। ফেসবুক মার্কেটিং কি

ফেসবুক মার্কেটিং এর প্রকারভেদ

পৃথিবীতে যে কোন বিষয়ের দুইটা দিক থাকে। আর এই দুইটি দিকেই মূলত প্রকারভেদ নামে পরিগণিত করা হয়। ঠিক একই ভাবে ফেসবুক মার্কেটিং দুই প্রকার। আর তা হলো:

  1.  ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং।
  2.  পেইড ফেসবুক মার্কেটিং।

আপনি আপনার ব্যবসা কিংবা আপনার সার্ভিস অথবা আপনার প্রোডাক্ট বিক্রয়ের জন্য আপনি ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং করবেন, নাকি পেইড ফেসবুক মার্কেটিং করবেন সেটা নির্ভর করবে আপনার প্রোডাক্ট, সার্ভিস, অথবাব্য বসার ধরন অনুযায়ী।

যদি আপনি মনে করেন আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা আপনার প্রোডাক্টের জন্য ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং  যথেষ্ট তাহলে আপনাকে আর পেইড মার্কেটিং করতে হবে না।

আর যদি মনে করেন যে আপনার কোম্পানি কিংবা আপনার সার্ভিস রিলেটেড যে মার্কেটিং আপনি করবেন তা একটি ব্র্যান্ড ভ্যালু পর্যায়ে পৌঁছাবে অর্থাৎ ফেসবুক মার্কেটিং কি

আপনি আপনার কোম্পানিকে একটি ব্র্যান্ড তৈরি করতে চাচ্ছেন অথবা আপনার যে কোন প্রোডাক্ট সেল বৃদ্ধি করতে চাচ্ছেন সে ক্ষেত্রে আপনাকে পেইড ফেসবুক মার্কেটিং করতে হবে এতে করে কোনো সন্দেহ নেই।

তাহলে চলুন এবার জেনে নেয়া যাক ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে কাজ করে?

ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং কি?

সাধারণ ভাষায় বলতে গেলে যেসব পদ্ধতি অবলম্বন করে ফ্রিতেই ফেসবুকে মার্কেটিং করা সম্ভব তাকেই বলা হয় ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং।

ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক মার্কেটিং কি
ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং কি?

ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং হল বিনা টাকায় আপনি আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা আপনার সার্ভিস অথবা আপনার প্রোডাক্টের প্রচার এবং প্রসারনা চালানো।

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মধ্যে আমরা প্রায় কমবেশি সকলেই ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং নিজের অজান্তেই হোক অথবা জেনেই হোক সব সময়ে ব্যবহার করে থাকি। ফেসবুক মার্কেটিং কি

অর্থাৎ ধরে নিন আপনি একটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যাবহার করছেন। কোন একসময় আপনার মনে হয়েছে এই ফোনটি আপনি পরিবর্তন করবেন। তখন আপনি কি করেন!

হয়তো এই ফোনটির একটি ছবি দিলেন, তারপর বিভিন্ন গ্রুপে অথবা আপনার প্রোফাইলে সেটি বিক্রয়ের জন্য পোস্ট করেন। “মূলত এটি হচ্ছে ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং”

ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং এর জন্য আপনি আরো কিছু ক্রাইটেরিয়া অবলম্বন করতে পারেন। সেটি হচ্ছে,

প্রথমে একটি ফেসবুক পেজ তৈরি করে নেবেন, পেজের নাম অনুসারে একটি ফেসবুক গ্রুপ তৈরি করে নিবেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক থেকে আয়
ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক থেকে আয়

এবং আপনার পেজ সেইসাথে গ্রুপটি যখন একটু জনপ্রিয়তা লাভ করবে তখন আপনি আপনার বিভিন্ন ধরনের সার্ভিস অথবা বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট সেখানে বিক্রয়ের জন্য পোস্ট করতে পারেন।

সেই সাথে আপনার ওই পোস্টগুলো বিভিন্ন গ্রুপ এবং বিভিন্ন পেজ কিংবা আপনার বন্ধুদের টাইমলাইনে শেয়ার করতে পারেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

এভাবেই মূলত ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং করা যায় এবং অনেকেই আছে যারা টাকা খরচ না করেই এই ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং করার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করছেন।

আশাকরি ফ্রি ফেসবুক মার্কেটিং কি? তা নিয়ে আর আপনার মনে প্রশ্ন নেই। তারপরও যদি আপনি আরো কিছু তথ্য জানতে চান তাহলে এখানে গিয়ে প্রশ্ন করতে পারেন।

কিংবা কমেন্ট সেকশনে আপনার মতামত জানাতে পারেন। এবার আমরা আলোচনা করব পেইড ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে।

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং কি?

পেইড ফেসবুক মার্কেটিং বলতে আমরা বুঝি, আপনার ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান কিংবা আপনার প্রোডাক্টের জন্য ফেসবুকের মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে তা বিপণন করা।

অর্থাৎ পেইড ফেসবুক মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে অবশ্যই আপনার যে প্রোডাক্ট অথবা আপনার যে সার্ভিস রয়েছে সেটির বিজ্ঞাপন চালু করতে হবে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

“এর জন্য বিজ্ঞাপন অনুসারে আপনাকে ফেসবুকে অর্থ প্রদান করতে হবে”

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং করার জন্য ফেসবুক বিজনেস একাউন্ট আপনাকে তৈরি করতে হবে এবং সেই একাউন্টে আপনার ক্রেডিট কার্ড সংযুক্ত করতে হবে।

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং করার জন্য যখন আপনি একটি বিজ্ঞাপন তৈরি করবেন তখন সেই বিজ্ঞাপন কতদিন থাকবে, এই বিজ্ঞাপন কে কে দেখবে, এই বিজ্ঞাপন কোন কোন এলাকায় প্রদর্শন হবে,

সেই বিষয়গুলো সেটআপ করার মাধ্যমে ফেসবুক আপনার একটি নির্দিষ্ট চার্জ কেটে নিবে।

অথবা আপনি চাইলে বিভিন্ন ধরনের অ্যাডভার্টাইজ কোম্পানি রয়েছে যারা ফেসবুক পেইড মার্কেটিং করার জন্য বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন দেয়ার প্যাকেজ প্রোভাইড করে থাকে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

আপনি চাইলে তাদের মাধ্যমেও আপনার পণ্য অথবা সার্ভিসের জন্য ফেসবুক পেইড মার্কেটিং করতে পারেন। 

আরও সহজভাবে যদি বলতে যাই তাহলে বলতে হয়, ফেসবুক ব্যবহার করার সময় মোবাইল স্ক্রীনে যখন বিভিন্ন ধরনের পোস্ট স্ক্রল করতে থাকেন,

তখন খেয়াল করবেন বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট এর বিজ্ঞাপন অথবা বিভিন্ন ধরনের সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে দেখানো হয়।

আর সেগুলোর মধ্যে যদি আপনার সেই প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস প্রয়োজন পড়ে তাহলে সেখানে ক্লিক করে আপনি সেই প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস গ্রহণ করেন।

এভাবেই একজন ফেসবুক মার্কেটার তাদের পণ্য কিংবা তাদের প্রোডাক্ট এর বিজ্ঞাপন দিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং করে থাকে।

যার মাধ্যমে তারা অধিক বিক্রয় সেইসাথে বিশাল একটি জনগোষ্ঠীকে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সাথে সংযুক্ত করতে পারে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

মূলত এভাবেই তারা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জন্য ফেসবুক পেইড মার্কেটিং করার মাধ্যমে প্রতি মাসে কয়েক হাজার থেকে কয়েক লক্ষ টাকা উপার্জন করে।

আপনি চাইলেই ঘরে বসেই আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কিংবা ল্যাপটপ অথবা কম্পিউটার ব্যবহার করে ফেসবুক পেইড মার্কেটিং করে প্রতিমাসে খুব ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এর সুবিধা

ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এর সুবিধা নিয়ে আলোচনা করতে গেলে তা শেষ করা সম্ভব হবে না।

কেননা ফেসবুক পেইড মার্কেটিংয়ের মাধ্যমে এড ক্যাম্পেইন ব্যবহার করে শুধুমাত্র আপনার পণ্যের টার্গেট অডিয়েন্স এর কাছে বিজ্ঞাপন পৌছাতে পারবেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

অর্থাৎ আপনার যে পণ্য এবং সার্ভিস রয়েছে কোন বয়সের মানুষের জন্য, কোন এলাকার মানুষের জন্য সুইটেবল হবে তা কেবলমাত্র ফেসবুক পেইড মার্কেটিং এর মাধ্যমেই নির্ধারণ করা যায়।

এর ফলে আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন নির্দিষ্ট কাস্টমারের কাছে পৌঁছায়, যারা উক্ত প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস ক্রয় করার আগ্রহ প্রকাশ করে।

  • ফেসবুকে ইউজার সংখ্যা বেশি হওয়ায় সকলের কাছেই বিজ্ঞাপন পৌঁছানো সম্ভব হয়।
  •  নির্দিষ্ট এলাকা তারগেট করে শহর দেশ কিংবা লোকাল এরিয়ায় বিজ্ঞাপন পৌঁছানো সম্ভব হয়।
  • জেন্ডার ভেদে বিভিন্ন বয়সের মানুষকে তারগেট করে আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস বিক্রয় করা যায়।
  • আপনার প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড ভ্যালু বৃদ্ধি করে। ফেসবুক মার্কেটিং কি
  • আপনার ব্লগ কিংবা ওয়েবসাইটের পরিচিতি অথবা ভিজিটর বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।

ফেসবুক মার্কেটিং করার নিয়ম

ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য অনেকগুলো নিয়ম রয়েছে। যেগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা আপনার প্রোডাক্টের জন্য খুব ভালো পরিমাণে সেলস এবং রিস অর্জন করতে পারেন।

প্রথমেই বলে রাখি ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য আপনি যে পদ্ধতি অবলম্বন করবেন তা যদি ঠিকঠাক ভাবে করতে পারেন তাহলে আপনার ফেসবুক মার্কেটিং কখনোই বিফলে যাবেনা। বরং ফেসবুক মার্কেটিং করার মাধ্যমে আপনি আপনার সার্ভিস কিংবা প্রোডাক্ট এর সেলস ব্যাপকহারে বৃদ্ধি করতে পারবেন।

তাই ফেসবুক মার্কেটিং করার নিয়ম গুলো যদি আপনি সঠিকভাবে অবলম্বন করতে পারেন তাহলেই কেবলমাত্র ফেসবুক মার্কেটিং করে সাকসেস অথবা সফলতা পেতে পারেন।

যেসব নিয়ম অবলম্বন করে ফেসবুক মার্কেটিং করবেন তা নিয়ে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো

ফেসবুক ভিডিও মার্কেটিং

বর্তমান সময়ে যে পদ্ধতিতে ফেসবুক মার্কেটিং করা হয় তার মধ্যে সবচেয়ে ব্যাপক জনপ্রিয় হচ্ছে ভিডিও।

যখন কোন পণ্য বা সার্ভিসের ভিডিও মার্কেটিং করার জন্য প্রস্তুত করা হয় তখন সেই ভিডিওর উপর মানুষের আগ্রহ অনেক বেশি থাকে।

কেননা ফেসবুক ব্যবহারকারীরা খুব সহজ এবং সংক্ষিপ্ত আকারে আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা আপনার সার্ভিস সম্পর্কে জানতে উক্ত ভিডিওর উপর বেশি আগ্রহ প্রকাশ করে।

আর আপনি জেনে অবাক হবেন যে অন্যান্য পদ্ধতির থেকে এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে অডিয়েন্স এর সাথে এঙ্গেইজমেন্ট ধরে রাখা সহ হিউজ এমাউন্ট প্রোডাক্ট সেল করা সম্ভব।

তাই চেষ্টা করবেন যখন আপনি পেইড মার্কেটিং করবেন তখন যেন আপনার এই মার্কেটিংয়ের ধারণ হয় ভিডিওর মাধ্যমে।

যদি আপনি ভিডিও এডিট করতে না পারেন অথবা ভিডিও তৈরি করতে না পারেন তাহলে অনেক কোম্পানি রয়েছে, অনেক সাপ্লায়ার রয়েছে যারা আপনাকে আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মার্কেটিংয়ের জন্য ভিডিও অথবা এনিমেশন আকারে ফেসবুক মার্কেটিং করে দিতে পারে।

ফেসবুক টেক্সট মার্কেটিং

এই পদ্ধতিতে ফেসবুক মার্কেটিং করা একদমই সহজ। যেকোনো সাধারণ মানুষ এই পদ্ধতি অবলম্বন করেও ফেসবুক মার্কেটিং করতে পারেন।

টেক্সট, ফেসবুক মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের গুণগতমান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা, আপনি এখানে পোষ্ট আকারে লিখে তা সর্বস্তরের কাছে পৌঁছাতে পারেন।

এক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই সাবলীল এবং সুন্দর ভাষায় সংক্ষিপ্তভাবে আপনার প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিসের উপস্থাপনা করতে হবে।

ফেসবুক স্টোরিস মার্কেটিং

ফেসবুক স্টোরিস আমরা প্রোফাইল থেকে কম বেশি সকলেই ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু কখনোই আমরা ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য স্টরি ব্যবহার করিনা।

তবে আপনাকে বলে রাখি আপনি যদি ফেসবুক মার্কেটিং করতে চান তাহলে ফেসবুক স্টোরিস আপনার জন্য খুব গুরুত্ব ভূমিকা পালন করবে।

কেননা ভিজিটর যখন তাদের প্রোফাইলে লগইন করে তখন বিভিন্ন ধরনের স্টরি গুলো তাদের প্রোফাইলের সামনে ঘুরতে থাকে। 

যদি কোন ইউজার সেই স্টরি গুলো চেক করতে যায় তাহলে সেখানে আপনার মার্কেটিং করার জন্য যে স্টোরি সেট করে রাখবেন সেটিতে ক্লিক করার সম্ভাবনা বেশি থাকবে। 

অথবা সেখান থেকে আপনার সেল জেনারেট হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যাবে। তাই আপনি যখন ফেসবুক মার্কেটিং করবেন তখন ফেসবুক স্টোরিস অবশ্যই ব্যবহার করবেন। 

ফেসবুক রিলস মার্কেটিং

আপনি জেনে অনেক খুশী হবেন যে টিকটক, ইউটিউব এবং অন্যান্য যেসকল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম আছে সেখানে রিলস এর মাধ্যমে উক্ত প্ল্যাটফর্ম গুলো পরিচালিত হয়। যেখানে মানুষ শর্ট ভিডিও এর মাধ্যমে তাদের কনটেন্টগুলো রিলস আকারে প্রকাশ করে।

আর এর জন্যই টিকটক পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ রিলস ভিডিও প্ল্যাটফর্ম হিসেবে খেতাব অর্জন করেছে। আর তারই ধারাবাহিকতায় ফেসবুক তাদের সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মে রিলস অপশনটি ইনক্লুড করেছে।

যা ফেসবুক রিলস নামে পরিচিত।বর্তমান সময়ে যা অধিক জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

তাই আপনার ফেসবুক মার্কেটিং এর সময়ে আপনি কখনই এই বিষয়টি এড়িয়ে যাবেন না। কেননা যেহেতু এই সিস্টেমটি একদমই নতুন তাই এখানে মানুষের আনাগোনা সবচেয়ে বেশি থাকে।

এজন্য যখন আপনি ফেসবুক মার্কেটিং করবেন তখন আপনার এই মার্কেটিংয়ের যে বিষয়টি রয়েছে তা অবশ্যই রিল আকারে পাবলিশ করার চেষ্টা করবেন।

এতে করে অন্যান্য পদ্ধতিগুলোর থেকেও ফেসবুক মার্কেটিং এ অনেক ভূমিকা পালন করবে বলে আমি মনে করি।

ফেসবুক মার্কেটিং করে আয় করার উপায়

ফেসবুক মার্কেটিং করে আয় করার অনেকগুলো সহজ উপায় রয়েছে যা আমরা অনেকেই জানিনা।

অনলাইন জগতে ইনকাম করার যতগুলো উপায় রয়েছে বর্তমান সময়ে সকল উপায়ে গুলোর মধ্যে সবচেয়ে সহজ পদ্ধতি হচ্ছে ফেসবুক থেকে আয় করা।

আর আপনি যদি খুব ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে ফেসবুক মার্কেটিং এর বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না।

ফেসবুক প্রোফাইল/পেজ থেকে আয়

ফেসবুক মার্কেটিং থেকে আয় করতে হলে সবার প্রথমে যে ধাপটি আসবে সেটি হল আপনার ফেসবুক প্রোফাইল কিংবা আপনার একটি ফেসবুক পেজে ব্যাপক পরিমাণে ফলোয়ার সংখ্যা থাকতে হবে।

যদি আপনার প্রোফাইল কিংবা আপনার ফেসবুক পেজে হিউজ পরিমান ফলোয়ার না থাকে তাহলে আপনি একটি পেজ তৈরি করে পেজ প্রমোশন এর মাধ্যমে ফলোয়ার জেনারেট করতে পারেন।

আপনি ভাবছেন কীভাবে একটি ফেসবুক পেজে ব্যাপক পরিমাণে ফলোয়ার থাকলে সেখান থেকে ইনকাম করা সম্ভব তাই না!

একটু খেয়াল করে দেখুন, আমরা অনেক সময় অনেক ধরনের সেলিব্রিটি বা বিভিন্ন ধরনের পরিচিত মুখ সকল ব্যক্তি রয়েছে যাদের ফেসবুক পেজ ফলো করে রাখি।

মাঝেমধ্যেই তারা বিভিন্ন প্রোডাক্ট অথবা বিভিন্ন সার্ভিস এর বিজ্ঞাপন প্রচার করে দেয়। আপনি কি ভাবেন! তারা কি এমনি এমনি তেই সেই সকল বিজ্ঞাপন প্রচার করে বা বিজ্ঞাপন তৈরি করে! মোটেও না!!

যখন আপনার একটি জনপ্রিয় ফেসবুক পেজ থাকবে তখন বিভিন্ন কোম্পানি আপনাকে বলবে তাদের কোম্পানি সম্পর্কে আপনার পেজে দু-চার লাইন কথা বলার। ফেসবুক মার্কেটিং কি

এতে করে তাদের কোম্পানির সেলস বৃদ্ধি পাবে অথবা তাদের কোম্পানির যে সকল সার্ভিস রয়েছে তা সম্পর্কে সকল ফেসবুক ইউজার জানতে পারবে।

আর এজন্যই কোম্পানিগুলো সেই পেজের মালিকদের বিপুল পরিমাণ অর্থ প্রদান করে। ফেসবুক মার্কেটিং থেকে আয়ের করার আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম হল ফেইসবুক মারকেটপ্লেস।

ফেসবুক মার্কেটপ্লেস থেকে আয়

এক্ষেত্রে আপনার পেজে হিউজ পরিমান ফলোয়ার থাকতে হবে না। আপনি চাইলে 0 ফলোয়ার্স একটি পেজ দিয়েও ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট অথবা সার্ভিস বিক্রয় করার মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

ধরে নিন আপনি একটি প্রোডাক্ট পছন্দ করলেন, সেই প্রোডাক্টটি ফেসবুকে বিক্রয় করার জন্য সিদ্ধান্ত নিলেন।

ফিজিক্যালি আপনার ঘরে অথবা আপনার শপে যে ওই প্রোডাক্ট থাকতে হবে বিষয়টি এমন নয়।

আপনি শুধু নিশ্চিত হলেন যে, যদি কোন কাস্টমার এই প্রোডাক্টটি চায় তাহলে আপনি তাকে সেই প্রোডাক্ট ব্যবস্থা করে দিতে পারবেন। ব্যাস তাহলেই হবে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

যখন আপনি সেই প্রোডাক্ট বিক্রয় করার জন্য ফেসবুক মার্কেটপ্লেসে বিজ্ঞাপন দিবেন তখন মানুষ ওই প্রোডাক্ট পছন্দ করলে ক্রয় করার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করবে।

ঠিক সেই মুহুর্তেই সেই প্রোডাক্টটি অন্যকোন প্রোভাইডারের কাছ থেকে সংগ্রহ করে আপনার উক্ত কাস্টমারকে দিতে পারবেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

এভাবেও ফেসবুক মার্কেটিং করে 0 ফলোয়ার্স থেকে শুরু করে ফেসবুক মার্কেটপ্লেস হতে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করতে পারেন।

ভিডিও কনটেন্ট থেকে আয়

আপনাকে নতুন করে বলার মত আর কিছুই নেই। কারণ আপনি ইতিমধ্যেই জেনে গেছেন ইউটিউব এর মত এখন ফেসবুকে ভিডিও আপলোড করার মাধ্যমে টাকা উপার্জন করা যায়।

কেননা সাম্প্রতিক সময়ে ফেসবুক পেজ এখন মনিটাইজেশন করার অপশন রেখেছে।

যখন আপনার পেজে 10 হাজার ফলোয়ার তৈরি হয়ে যাবে এবং আপনার ভিডিও গুলোতে ভিউ এর পরিমাণ বৃদ্ধি হয়ে যাবে তখন আপনার পেজটি মনিটাইজেশন অন হবে।

একবার আপনার পেজটি মনিটাইজেশন হয়ে গেলে সেখান থেকে আপনি খুব ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং শিখবেন

আপনি চাইলে কিছু ফ্রি মেথড ব্যবহার করে ফেসবুক মার্কেটিং শিখতে পারেন। যেমন গুগল অথবা ইউটুবে ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে সার্চ করে ভিডিও দেখে দেখে ফেসবুক মার্কেটিং শিখতে পারেন।

ইউটিউবে অনেক ইউটিউবার রয়েছে যারা ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে ফ্রী কোর্স প্রোভাইড করে। আপনি চাইলে তাদের ভিডিওগুলো দেখে সেখান থেকে ফেসবুক মার্কেটিং শিখতে পারেন।

আপনি যখন এসকল সাধারন ভিডিও গুলো দেখবেন তখন ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে আপনার একটি আইডিয়া তৈরি হবে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

এরপর বুঝেশুনে ভালোমানের কোন আইটি সেক্টর খোঁজ নিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং এর উপর একটি কোর্স করতে পারেন।

অথবা ফেসবুক মার্কেটিং কি? ফেসবুক মার্কেটিং কিভাবে কাজ করে? আপনি কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং শিখবেন? এসব কি লিখে গুগলে সার্চ করলে অসংখ্য ওয়েবসাইট কিংবা ব্লগের ইউআরএল চলে আসবে। 

আপনার যে ওয়েব সাইট ভালো লাগবে আপনি সেখানে প্রবেশ করে ফেসবুক মার্কেটিং সম্পর্কে ধারণা নিতে পারেন। ফেসবুক মার্কেটিং কি

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স 

আমি পূর্বেই বলেছি ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি বড় অংশ দখল করে আছে ফেসবুক মার্কেটিং। বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে ফেসবুকের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন কোটি কোটি মানুষ।

ব্লগিং থেকে আয় করার ১০ টি সহজ উপায়
ব্লগিং থেকে আয় করার ১০ টি সহজ উপায়

আর এই কারনেই আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে আপনি যে ব্যবসায় করুন না কেন অথবা আপনি যে সার্ভিস প্রোভাইড করেন না কেন তা ক্রয় করার জন্য অনেক কাস্টমার পাবেন ফেসবুকে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

আপনি যদি একজন ব্যবসায়ী হন কিংবা স্টুডেন্ট হয়ে থাকেন, ব্যবসা শুরু করতে চান, তাহলে ফেসবুক মার্কেটিং এর উপরে কোর্স করা আপনার জন্য আবশ্যক।

যেহেতু প্রত্যেকটি জিনিস শেখার দুইটি পদ্ধতি রয়েছে: ফেসবুক মার্কেটিং কি

  1. ফ্রী পদ্ধতি।
  2. পেইড পদ্ধতি।

আমরা কমবেশি সকলেই জানি যে ফ্রি কোন কিছুই তেমন একটা ভাল হয় না। তাই আমাদের ক্যারিয়ার সাথে প্রশ্নবিদ্ধ এমন কোন বিষয়কে অবশ্যই পেইড পদ্ধতিতে করাটাই বুদ্ধিমানের কাজ।

এজন্য আপনি যদি ফেসবুক মার্কেটিং করার মাধ্যমে আপনার ক্যারিয়ার গঠন করতে চান, ফেসবুক মার্কেটিং করে প্রতি মাসে ন্যূনতম 30 থেকে 60 হাজার টাকা উপার্জন করতে চান, তাহলে অবশ্যই ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স করা আপনার জন্য সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। ফেসবুক মার্কেটিং কি

যদি আপনি প্রশ্ন করেন ভাইয়া! আমি কোন প্রতিষ্ঠান থেকে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স করলে জীবনে সাফল্য অর্জন করতে পারব?

এগুলো পড়তে পারেন,,

তাহলে আমি আপনাকে রেফার করতে পারি “টেন মিনিট স্কুলের” ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স এর উপর।

টেন মিনিট স্কুল সম্পর্কে জানেনা বাংলাদেশ এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া খুবই কষ্টকর। ফেসবুক মার্কেটিং কি

যেহেতু এই প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন স্কিলস এর উপর বিভিন্ন ধরনের কোর্স সামগ্রী ফ্রী এবং পেইড প্রোভাইড করে, তাই তাদের জনপ্রিয়তা বাংলাদেশসহ ইন্ডিয়াতে ও এবং ব্যাপক পরিমাণে বৃদ্ধি হয়েছে।

এমনকি আমার জানাশোনা অনেক বন্ধুবান্ধব রয়েছে যারা “টেন মিনিট স্কুলের” এই সকল স্কিলস এর উপর বিভিন্ন কোর্স করে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করেছে।

টেন মিনিট স্কুল বর্তমান সময়ে বাংলাদেশসহ বিশ্বের কয়েকটি দেশের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন শিক্ষণীয় প্ল্যাটফর্ম হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। ফেসবুক মার্কেটিং কি

তাদের রয়েছে বিভিন্ন বিষয়ের উপরে ১৫০+শিক্ষক এবং ২৮ হাজার+ ভিডিও,  ৯৩ লক্ষ+ শিক্ষার্থী,  ৪১ লক্ষ+ অ্যাপ ব্যবহারকারী।

আর তাই, আপনি এই প্রতিষ্ঠান এর যে কোন কোর্স এর উপরে বিশ্বাস অর্জন করতে পারেন

ফেসবুক মার্কেটিং এই কোর্সে কি কি রয়েছে?

খুব সহজভাবে মনে প্রশ্ন আসতে পারে, আমি এই কোর্সটি কিনতে চাই, কিন্তু আমি জানতে চাই এই কোর্সের মাধ্যমে আমি কি কি শিখতে পারব? তাই এই ফেসবুক মার্কেটিং করছে যে সিলেবাস গুলো রয়েছে তা নিয়ে আমি আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। ফেসবুক মার্কেটিং কি

“ফেসবুক মার্কেটিং এর এই কোর্স এ যা যা থাকছে” ফেসবুক মার্কেটিং কি

ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স সিলেবাস

ফেসবুক মার্কেটিং এর এই কোর্সের প্রথম সিলেবাসে যে বিষয়গুলো রয়েছে তা নিয়ে বুলেট পয়েন্টে লিস্ট আকারে উল্লেখ করা হলো:

  • মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি।
  • প্রফেশনাল ফেইসবুক পেইজ  তৈরি।
  • ফেইসবুক গ্রুপ ম্যানেজ এবং এনগেইজ।
  • পোস্টে ক্যাপশন লিখা।
  • CTA- Call to Action.
  • Facebook Video Pattern.
  • কন্টেন্ট প্ল্যানিং।
  • Content in Computer Screen vs Mobile Screen.
  • ক্যাম্পেইন প্ল্যানিং। ফেসবুক মার্কেটিং কি
  • এবং সবশেষে ফেসবুক মার্কেটিং এর হাতেখড়ি এর উপর বিশেষ কিছু কুইজ পর্ব যাতে করে আপনি কি শিখেছেন এবং কোথায় আপনার বুঝতে অসুবিধা হয়েছে তা শনাক্ত করে সমাধান করা।

মোবাইল দিয়ে কন্টেন্ট তৈরি

এ পর্যায়ে যাদের কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ নেই শুধুমাত্র হাতে একটি স্মার্টফোন রয়েছে, তারা কিভাবে তাদের মোবাইল ফোন দিয়ে কনটেন্ট তৈরি করবেন এবং ফেসবুক মার্কেটিং শুরু করবেন তাদের জন্য এই সিলেবাসে যা যা থাকছেঃ

  • যেভাবে মোবাইল দিয়ে গ্রাফিক ডিজাইন করবেন।
  • যেভাবে মোবাইল দিয়ে গ্রাফিক ডিজাইন করবেন।
  • Mobile Photography.
  • মোবাইল দিয়েই ভিডিও এডিটিং।
  • Mobile Videography.
  • এবং সবশেষে মোবাইল দিয়ে কনটেন্ট তৈরি করতে আপনি পারবেন কিনা বা আপনার কোথায় সমস্যা হচ্ছে তা শনাক্ত করে সেটির সমাধান নির্ণয় করা। ফেসবুক মার্কেটিং কি

কন্টেন্ট মার্কেটিং এবং এনগেজমেন্ট

ফেসবুক মার্কেটিং করার সময় কনটেন্ট মার্কেটিং এবং ইউজার এঙ্গেজমেন্ট কিভাবে বৃদ্ধি করবেন তা নিয়ে এই পর্বে যে সকল ভিডিও এবং যে সকল ক্লাস রয়েছে তা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো:

  • Initial Reaction.
  • RFS- Recommendation, Follower & Share.
  • Bringing the followers back.
  • Reaching out to A New Audience.
  • Link.
  • Evergreen content vs Trendy content.
  • এই পর্বে কনটেন্ট মার্কেটিং এবং এঙ্গেজমেন্ট বিষয়ে যে সকল প্রশ্ন রয়েছে সে সকল প্রশ্নের উত্তর দেয়া হবে।

ভিডিও কন্টেন্ট এর প্রয়োজনীয় বিষয়সমূহ

এই সিলেবাসে ভিডিও কনটেন্ট সম্পর্কে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করার পাশাপাশি প্রাক্টিক্যালি দেখানো হবে কিভাবে ভিডিও কনটেন্ট ফেসবুক মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে।

  • Basic Boosting Process on Facebook.
  • Creating a Campaign on Facebook Ad Manager.
  • Facebook Ad Manager Campaign Strategies.
  • Shortening & Tracking Links for Facebook Business.
  • সর্বোপরি ভিডিও কন্ট্রোল এর বিভিন্ন দিক নিয়ে এই পর্বে আলোচনা করার পাশাপাশি প্রাকটিকালে আপনাকে দেখানো হবে ভিডিও কিভাবে আপনার বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস এর উপর প্রভাব ফেলে।
  • এবং অন্যান্য পর্বের মতো এখানেও রয়েছে বিশেষ কিছু কুইজ যা আপনার বিভিন্ন প্রশ্নের সমাধান করবে।

ব্র্যান্ডিং এবং স্পন্সরশিপ

ফেসবুক মার্কেটিং এর এই কোর্সের সর্বশেষে আপনাকে যে বিষয়গুলো নিয়ে বুঝিয়ে দেয়া হবে তা হচ্ছে আপনি কিভাবে আপনার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ব্র্যান্ডিং ভাবে প্রচারণা করবেন।

এবং আপনার প্রচারণার পাশাপাশি কিভাবে আপনি আপনার ফেসবুক পেজ অথবা গ্রুপের স্পনসর্শিপ নিয়ে সেখান থেকে আয় করতে পারবেন তা নিয়েও এখানে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

আপনি যদি সত্যি ফেসবুক মার্কেটিং করে অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে চান এবং ফেসবুক মার্কেটিং করে আপনি আপনার পরিবারের হাল ধরতে চান পাশাপাশি ফেসবুক মার্কেটিং করে প্রতিমাসে ভালো পরিমাণে অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে আপনার স্কিল ডেভেলপমেন্ট করার জন্য অবশ্যই আপনাকে ফেসবুক মার্কেটিং কোর্স করতে হবে।

Homepage shobarjobs.com
Category Freelancing
Last Update Just Now
Written by Ashraful Islam

উপসংহার

আজকের এ আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করেছি ফেসবুক মার্কেটিং কি এবং আপনি কিভাবে ফেসবুক মার্কেটিং করে ফেসবুক থেকে প্রতি মাসে কয়েক হাজার টাকা আয় করতে পারবেন তা নিয়ে হয়তো আপনি সঠিক ধারণা পেয়ে গেছেন।

অবসর সময়ে কাজে লাগিয়ে ফেসবুক মার্কেটিং করার মাধ্যমে ঘরে বসে প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করার জন্য যদি কোন সহযোগিতা লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন আমি আপনার প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য প্রস্তুত রয়েছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Updated

Recent